শিশুর জন্য ৫ টি পুষ্টিকর খাবারের রেসিপি

শিশুর খাবার নিয়ে মায়েদের চিন্তার শেষ নেই। শিশু কি খাবে না খাবে এসব নিয়ে সব মায়েরই থাকে অনেক চিন্তা। কি খেলে শিশু পর্যাপ্ত পুষ্টি পাবে তা আমরা অনেকেই জানি না বা জানলেও তা তৈরি করে খাওয়াতে পারি না। শিশুর জন্য পুষ্টিকর খাবার একটি অতীব জরুরী বিষয়।

শিশুরা ছোট থেকেই সঠিক পুষ্টি না পেলে তাদের দেহের সঠিক গঠন হয় না এবং মেধারও বিকাশ হয় না। তাই শিশুকে সঠিক খাবার দেওয়া উচিৎ যা খেলে শিশু প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাবে। আজ আমরা শিশুর খাবারের জন্য ৫ টি রেসিপি সম্পর্কে জানবো। আসুন জেনে নিই শিশুর খাবারের পাঁচটি রেসিপি।

শিশুদের পুষ্টিকর খাবারের রেসিপি

কলিজার খিচুড়ি

শিশুর খাবারের রেসিপির শুরুতেই আমরা জানবো কলিজার খিচুড়ি সম্পর্কে। অত্যন্ত পুষ্টিকর ও সুস্বাদু একটি খাবার হল কলিজার খিচুড়ি। এটি কিভাবে বানাতে হয় এবার আমরা সেটিই জেনে নিবো।

উপকরণ: মুরগীর কলিজা, চাল, ডাল, সবজি, পেঁয়াজ, আদা বাটা, রসুন বাটা, অন্যান্য মসলা, তেল, লবণ

রেসিপি

  • মুরগির কলিজা ছোট করে কেটে ভালো করে ধুয়ে নিন।
  • চাল, ডাল ভালো করে ধুয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন এবং এর পর এ থেকে পানি ঝরিয়ে নিন। পাশাপাশি সকল শাকসবজিও ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন।
  • এবার রান্নার পাত্রে তেল নিয়ে গরম করে নিন। গরম তেলে পেঁয়াজ কুচি, রসুন ও আদা বাটা দিয়ে দিন।
  • পেঁয়াজ ও অন্যান্য মসলা ভালো করে ভাজা হয়ে এলে এতে চাল ও ডাল দিয়ে দিন। এবার এটি নাড়াচাড়া করতে থাকুন। স্বাদমতো লবণ ও হলুদের গুড়া দিয়ে দিন।
  • চাল, ডালের মিশ্রণ হালকা ভাজা হলে এতে পরিমাণ মতো পানি দিয়ে দিন। এবার এটি ঢেকে দিন। এবার অপেক্ষা করুন। চাল, ডাল সেদ্ধ হয়ে এলে এবার এতে সকল সবজি ও কলিজা দিয়ে উপকরণ গুলো ভালো করে মিশিয়ে নিন।
  • সব উপকরণ সেদ্ধ হয়ে এলে এবার এটি নামিয়ে নিন। হয়ে যাবে আপনার শিশুর জন্য পুষ্টিকর কলিজার খিচুড়ি।

চিড়ার পোলাও

কলিজার খিচুড়ি তো জানলাম। এবার জানবো চিড়ার পোলাও এর রেসিপি সম্পর্কে। এটিও শিশুদের জন্য একটি দারুণ খাবার হতে পারে। আসুন জেনে নিই চিড়ার পোলাও কিভাবে প্রস্তুত করতে হবে।

উপকরণ: চিড়া, সবজি, পেঁয়াজ, ডিম, লবণ।

রেসিপি

  • ভালো করে চিড়াগুলো ধুয়ে নিন এবং এরপর ফুটানো পানিতে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে এর পর পানি ঝরিয়ে নিন। একই সাথে পেঁয়াজ ও অন্যান্য সবজিও ধুয়ে নিন।
  • এবার রান্নার পাত্রে তেল নিয়ে গরম করে নিন। তেল গরম হয়ে এলে এতে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। পেঁয়াজ সামান্য বাদামী রঙের হয়ে এলে এতে অন্য সকল সবজি দিয়ে দিন। এর সাথে পরিমাণ মতো লবণ যোগ করে নিন। এবার এটি ভালো করে নেড়েচেড়ে মিশিয়ে নিন।
  • এবার সবজি সেদ্ধ হওয়ার জন্য অপেক্ষা করুন। সবজি সেদ্ধ হয়ে এলে এতে একটি ডিম ফাটিয়ে দিয়ে দিন। এবার ডিমটি ভালোভাবে মিশিয়ে নিন।
  • এবার এতে পানি ঝরানো চিড়া গুলো দিয়ে দিন। এবার ভালো করে এটি নাড়াচাড়া করুন। ৫ থেকে ১০ মিনিট অল্প আঁচে রান্না করতে থাকুন। ৫-১০ মিনিট পর শিশুর জন্য পরিবেশন করুন গরম গরম চিড়ার পোলাও।

ডিমের সুজি

ডিমের সুজিও শিশুর জন্য খুবই উপাদেয় একটি খাবার। দারুণ সুস্বাদু এই খাবার শিশুর ক্ষুধা দূর করবে, পাশাপাশি শিশুর পুষ্টির চাহিদাও পূরণ করবে। এছাড়াও শিশুরা এটি খেয়ে অনেক তৃপ্তিও পাবে। তাহলে দেরি না করে আসুন জেনে নিই ডিমের সুজি তৈরির উপায়।

উপকরণ: সুজি, প্রয়োজন মতো পানি, তেল, গুড়, সবজি।

রেসিপি

  • রান্নার পাত্রে প্রয়োজন মতো সুজি নিয়ে হালকা ভাজতে থাকুন। সুজি বাদামী রঙের হয়ে এলে এতে পরিমাণ মতো পানি মিশিয়ে নিন। এবার এতে সবজি গুলো ভালো ধুয়ে, কেটে দিয়ে দিন।
  • সুজি হালকা নাড়তে থাকুন সারাক্ষণ। এতে সুজি রান্নার পাত্রে লেগে যাবে না। এবার সুজি ভালো করে সেদ্ধ হয়ে গেলে এতে ডিম ফাটিয়ে দিয়ে দিন।
  • ভালো করে নাড়াচাড়া করতে থাকুন। অল্প আঁচে রান্না করুন ২ থেকে ৩ মিনিট, পাশাপাশি সুজি ও ডিমের মিশ্রণটি ভালোভাবে নাড়তে থাকুন।
  • এবার এতে পরিমাণ মতো তেল দিয়ে দিন, একই সাথে গুড়ও দিয়ে দিন। এবার এগুলো একসাথে ভালো করে মিশিয়ে নিন।
  • সকল উপাদান ভালো করে মিশে গেলেই প্রস্তুত হয়ে যাবে চিড়ার পোলাও। এবার চুলা থেকে নামিয়ে আপনার শিশুর জন্য পরিবেশন করুন গরম গরম চিড়ার পোলাও।

ডিমের খিচুড়ি

ডিমের সুজির পাশাপাশি ডিম দিয়ে চাইলে শিশুকে দিতে পারেন খিচুড়িও। এটিও দারুণ এক খাবার শিশুর জন্য। আসুন এবার জানি শিশুর জন্য ডিমের খিচুড়ি বানানোর রেসিপি।

উপকরণ: চাল, ডাল, ডিম, তেল, লবণ, হলুদ, পরিমাণ মতো পানি, পেঁয়াজ কুচি, আদা বাটা, রসুন বাটা।

রেসিপি

  • চাল, ডাল ভালো করে ধুয়ে নিন। একটি পাত্রে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে নিন। একইসাথে সকল সবজিও ধুয়ে কেটে নিন।
  • একটি পাত্রে পরিমাণ মতো তেল দিয়ে গরম করে নিন। গরম তেলে পেঁয়াজ কুচি, আদা বাটা, রসুন বাটা দিয়ে ভালো করে নাড়তে থাকুন।
  • পেঁয়াজ কুচি ও অন্য মসলা ভালো করে ভাজা হয়ে এলে এতে চাল ও ডাল দিয়ে ভালো করে ভাজতে থাকুন। চাল, ডাল ভাজা হয়ে এলে এতে পরিমাণ মতো পানি ও লবণ দিয়ে দিন। এবার পরিষ্কার একটি পাত্র দিয়ে এটি ঢেকে অল্প আঁচে রান্না করুন ও সেদ্ধ হওয়ার জন্য অপেক্ষা করুন।
  • চাল ও ডাল কিছুটা সেদ্ধ হয়ে এলে এবার এতে সকল সবজি দিয়ে দিন। পরিমাণ মতো হলুদের গুড়া দিয়ে দিন। সবজি গুলো মিশিয়ে আবার ঢেকে দিন। সবজি ও চাল, ডাল সেদ্ধ হয়ে গেলে এতে একটি ডিম ফাটিয়ে দিয়ে দিন। এবার ডিমটি ভালো করে মিশিয়ে রান্না করতে থাকুন ৫ থেকে ১০ মিনিট।
  • ৫ থেকে ১০ মিনিট রান্না করে এবার নামিয়ে ফেলুন চুলা থেকে। প্রস্তুত হয়ে গেলো আপনার শিশুকে খাওয়ানোর জন্য ডিমের খিচুড়ি।

ফিরনি

শিশুকে খিচুড়ি, চিড়ার পোলাও, সুজি এসব ছাড়াও দিতে পারেন ফিরনি। ফিরনি বানিয়ে শিশুকে খাওয়াতে পারেন। এটিও শিশুর জন্য পুষ্টিকর একটি খাবার। পাশাপাশি এটি শিশুর খাবারের স্বাদে ভিন্নতা আনতে সাহায্য করবে। আসুন জেনে নিই ফিরনি প্রস্তুত প্রণালী।

উপকরণ: পোলাও চাল, আধা লিটার দুধ, চিনি পরিমাণ মতো, এলাচি, দারচিনি, কিসমিস।

রেসিপি

  • পোলাও এর চাল ভালো করে ধুয়ে নিন। এবার এটিকে আধা ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। আধা ঘন্টা পর এটি থেকে পানি ঝরিয়ে নিন।
  • পোলাও চাল গুলো এবার ভালো করে বেটে নিন। তবে পুরোপুরি বাটবেন না। অর্ধেক বেটে নিবেন।
  • এবার রান্নার পাত্রে দুধ, এলাচি, দারচিনি, কিসমিস দিয়ে ভালো করে জাল দিয়ে নিন। তারপর এতে আধ বাটা চাল মিশিয়ে দিন। এরপর এতে পরিমাণ মতো চিনি মিশিয়ে নাড়তে থাকুন।
  • ভালোভাবে রান্না হয়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা করে নিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে আপনার শিশুর জন্য পরিবেশন করুন ফিরনি।

উপসংহার

শিশুর খাবার নিয়ে মায়েরা অনেক চিন্তা করেন। তবে এত চিন্তা না করে শিশুকে পরিমাণ মতো পুষ্টিকর খাবার খেতে দিন। পুষ্টিকর ও সুস্বাদু খাবার শিশুকে খেতে আগ্রহী করবে ও মুখের রুচিও বৃদ্ধি করবে। তাই উপরোক্ত প্রণালী গুলো দিয়ে আপনি চাইলে সহজেই আপনার শিশুর জন্য প্রস্তুত করতে পারেন সুস্বাদু ও পুষ্টিকর সকল খাবার।

তথ্যসূত্রঃ

আরও পড়তে পারেনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.