রুপচর্চায় জবা ও গোলাপ পাপড়ির অসাধারন কিছু ব্যবহার

রূপচর্চার বিভিন্ন পণ্যের বিজ্ঞাপণে বিভিন্ন ফুলের ব্যবহার দেখে থাকি। সবচেয়ে বেশি দেখা যায় গোলাপ ও জবা ফুল। এর কারণ হলো, জবা ও গোলাপ ফুলে আছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন, যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এবার রূপচর্চায় গোলাপ ও জবা ফুলের ঘরোয়া ব্যবহার জেনে নিলে কেমন হয়?

জবা

সৌন্দর্য ধরে রাখতে জবা ফুল অতুলনীয়। ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে ও ত্বকের সঠিক রং বজায় রাখতে এর জুড়ি মেলা ভার। ত্বকের প্রয়োজনীয় তেলের মধ্যে সামঞ্জস্য বজায় রেখে ত্বককে বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে জবা ফুলের রস ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও জবার রস মাথা ত্বকের যত্ন নেয় ও চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এ সকল কারনেই চুলের তেল তৈরিতে এবং বিভিন্ন সৌন্দর্য বর্ধনকারী পণ্যে জবা ফুল ব্যবহার করা হয়।

গোলাপ পাপড়ি

গোলাপ জল, ফেস মাস্ক, গাঁয়ে মাখার সাবান, লোশন, নাইট ক্রিম, ইত্যাদি তৈরিতে ব্যবহৃত হয় গোলাপ । গোলাপের অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বকে বয়সের বলিরেখা পড়তে দেয় না। ত্বকে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখে। তাই আপনিও আপনার ত্বককে প্রাণবন্ত রাখতে ব্যবহার করতে পারেন গোলাপ পাপড়ি। বাড়িতেই গোলাপের পাপড়ি দিয়ে বিভিন্ন প্যাক বানিয়ে নিতে পারেন।

রুপচর্চায় গোলাপ পাপড়ি  

১. ত্বকের কোমলতা বাড়াতেঃ

শুকনো গোলাপের পাপড়ি সাথে ২ টেবিল চামচ মধু ও ২ টেবিল চামচ তরল দুধ এক সাথে পেষ্ট তৈরি করে নিন। রাতে ঘুমানোর পূর্বে মুখে ভাল ভাবে লাগিয়ে নিন। ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। অতঃপর ধুয়ে ফেলুন । নিয়মিত ব্যবহারে আপনার ত্বক হবে নরম ও কোমল । 

২. ঠোটের যত্নেঃ

ঠোটের কাল দাগ দূর করতে লেবু, লাল চিনি, দুধ, ও গোলাপের পাপড়ি একসাথে মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিতে পারেন। লেবুর রস ৩-৪ ফোটা, লাল চিনি কয়েক দানা, তরল দুধ, এবং গোলাপের পাপড়ির পেষ্ট তৈরি করে নিন। সব উপকরণ এক সাথে মিশিয়ে ঠোটে লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট। তার পর ধুয়ে ফেলুন।

গোলাপের শুকনো পাপড়ি
গোলাপের শুকনো পাপড়ি

৩. ব্রণ দূর করতেঃ

যারা ব্রণের সমস্যায় ভুগছেন, তাদের জন্য গোলাপ পাপড়ি ও লেবুর রস হতে পারে প্রাকৃতিক সমাধান। লেবুর রস কয়েক ফোটা ও সাথে গোলাপের পাপড়ি পেষ্ট। এক সাথে মিশিয়ে ব্রণের স্হানে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এ পদ্ধতি ব্রণের সমস্যা দ্রুত দূর করতে সাহায্য করে।

৪. সানস্ক্রিন হিসেবেঃ

রোদে বাহিরে বের হওয়া আগে এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। গোলাপের পাপড়ির রস, এলোভেরা জেল, শসার রস ও আমন্ড অয়েল এক সাথে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। আপনার ত্বককে রোদে পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে প্রাকৃতিক সানস্ক্রিন হিসেবে কাজ করবে। 

৫. ডার্ক সার্কেল দূর করতেঃ

গোলাপের পাপড়ি চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে দূত কাজ করে। একটি পাত্রে কিছু গোলাপের পাপড়ি পানিতে ভিজিয়ে রাখুন, তারপর তুলার সাহায্যে গোলাপের পাপড়ি ভিজানো পানি চোখে লাগিয়ে রাখুন ১৫-২০ মিনিট। পরে ধুয়ে ফেলুন। এটি নিয়মিত ব্যবহার করলে ডার্ক সার্কেল দূর হবে।

৬. হাতের যত্নেঃ

গোলাপের পাপরি পেষ্ট তৈরি করে, তার সাথে ২ চা চামচ চালের গুড়া, ও ২ চা চামচ অলিভ ওয়েল এক সাথে মিশিয়ে হাতে লাগিয়ে রাখুন । ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে হাত দুয়ে ফেলুন। এটি হাতের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করবে।

৭. চুলের যত্নঃ

গোলাপের পাপড়ি চুলের পুষ্টি যোগাতে অনেক সাহায্য করে। ২ টেবিল চামচ গোলাপের পাপড়ির পেষ্ট এর সাথে পেয়াজের রস মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে নিন। এটি সপ্তাহে ২-৩ দিন ব্যবহার করবেন। এতে চুল পড়া বন্ধ হবে। আবার মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল সচল করবে এবং নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে।

৮. ময়েশ্চারাইজার হিসেবেঃ

ত্বকের ময়েশ্চার ধরে রাখতে গোলাপের তুলনা হয় না। ১ চামচ গোলাপের রস ও ২ চামচ এলোভেরা জেল এক সাথে মিশিয়ে মুখে লাগাবেন। এটি ত্বকে ময়েশ্চারাইজার এর কাজ করে।

রুপচর্চায় জবা ফুল

জবা ফুল দেখতে যেমন সুন্দর তেমিন রুপচর্চাতে রয়েছে এর র্কযকারী ভূমিকা।নিষ্প্রাণ ত্বক, ব্রণ, রেশসহ নানা সমস্যা সমাধান করে জবা ফুল। প্রাকৃতিকিছু উপাদান দিয়ে তেরি করা যায় জবা ফুলের ফেসপ্যাক।

১. ব্রণ দূর করতেঃ

জবা ফুলের শুকনো পাপড়ি

জবা ফুল শুকিয়ে পাউডার তৈরী করে নিন। জবা ফুলের পাউডারের সাথে ১ চামচ মধু, মুলতানি মাটি ও পানি এক সাথে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। মুখ ভাল ভাবে ধুয়ে নিন, তার পর পেকটি মুখে ভাল ভাবে লাগিয়ে নিন।

২০ মিনিট অপেক্ষার পর ঠান্ডা গানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। জবা ফুলের ফেসপ্যাক সপ্তাহে ৩-৪দিন ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে ব্রণ, র‍্যাশ দূর হবে এবং ত্বক উজ্জ্বল করতে সাহায্য করবে।

২. টক্সিন ও অতিরিক্ত তেল কমায়ঃ

জবা ফুলের পাপড়ি পেষ্ট তৈরি করে তার সাথে এলোভেরা জেল মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। ত্বকের দূষণ কমাবে ও অতিরিক্ত তেল দূর করবে।

৩. ত্বকের বলি রেখা দূর করতেঃ

শুকন জবা ফুলের পাপড়ি গুড়া ৩ চামচ, ৪ টেবিল চামচ টক দই, ১ চামচ চন্দন গুড়া একসাথে মিশিয়ে নিন। এটি মুখের বলি রেখা দূর করতে সাহায্য করবে।

৪. চুলের যত্নেঃ

খুশকি কমাতে জবা ফুল দারুন র্কযকারী। প্রথমে ২-৩ চামচ মেথি পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এর পর জবা ফুলের পেষ্ট ৩ চামচ, এলোভেরা জেল, অলিভ অয়েল তেল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। মিশ্রণটি ভাল ভালে মাথায় লাগিয়ে ফেলুন। শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তার পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ভাল ভাবে ধুয়ে ফেলুন।

এভাবে সপ্তাহে ৩- ৪দিন ব্যবহার করবেন। অথবা জবা ফুলের পেষ্টের সাথে মেহেদি মিশ্রণ করে তাতে লেবুর রস দিয়ে দিন। এর পর ভাল ভাবে মাথায় লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট অপেক্ষার পর ধুয়ে ফেলুন। এতে করে চুল পরা বন্ধ হবে ও নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে।

আরও পড়তে পারেনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.