রক্তে উচ্চ শর্করা উপস্থিতির ১০ টি লক্ষণ



আমাদের শরীরের অগ্ন্যাশয় ইনসুলিন তৈরি করে। একটি স্বাভাবিক শরীর রক্তে উচ্চ শর্করা নিয়ন্ত্রণ করার জন্য পর্যাপ্ত ইনসুলিন উৎপাদন করে। একজন ডায়াবেটিক ব্যক্তির রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রা শরীর দ্বারা নিজে নিজে নিয়ন্ত্রিত হয় না এবং কমে না। এই উচ্চ শর্করার মাত্রা শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ এবং কোষের উপর নেতিবাচক প্রভাব সৃষ্টি করে।

রক্তে উচ্চ শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে স্থায়ী ক্ষতি হওয়া সম্ভব। এ কারণেই বেশিরভাগ ডায়াবেটিস রোগীদের ইনসুলিন ব্যবহার করতে হয়। চলুন আজকে জেনে নেই রক্তে উচ্চ শর্করার ১০ টি লক্ষণ।

১. ক্লান্তি বা অবসাদ

চরম ক্লান্তি বোধ করা রক্তে উচ্চ মাত্রার শর্করার লক্ষণ হতে পারে। যখন আপনার রক্তে খুব বেশি গ্লকোজ (চিনি) থাকে, তখন আপনি ক্লান্ত বোধ করবেন। যে রক্তে প্রচুর পরিমাণে চিনি থাকে তা স্বাভাবিক শর্করার মাত্রাযুক্ত রক্তের চেয়ে ধীরে ধীরে চলে।

রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রা ক্লান্তির সাথে সম্পর্কিত। শর্করার উচ্চ মাত্রা রক্তনালীগুলির প্রদাহ সৃষ্টি করে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, যখন রক্তনালীগুলি ফুলে যায়, তখন মস্তিষ্কে মনোসাইট (Monocytes) ক্ষরণ হয়। Monocytes হল ইমিউন কোষ (immune cells)। এগুলো ক্লান্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

শরীরের চারপাশে রক্ত সঞ্চালন ধীর হয়ে যায়। যখন এটি ঘটে, তখন অঙ্গ এবং কোষগুলি রক্ত থেকে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পায় না। এমতাবস্থায় চিকিৎসকের শরণাপন্ন না হলে দীর্ঘমেয়াদী ক্ষতির কারণ হয়।

২. ঝাপসা দৃষ্টি

আপনি যদি ঝাপসা দৃষ্টির সমস্যা অনুভব করেন তবে হতে পারে আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা বেশি। রক্তে শর্করার মাত্রা যদি হ্রাস না পায় তাহলে চোখের লেন্স ফুলে যায়। লেন্সের এই পরিবর্তনটি আপনার দেখার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে। চিকিৎসকের শরণাপন্ন না হলে, লেন্সের স্থায়ী ফোলাভাব স্থায়ী ক্ষতি করতে পারে এবং আপনার দৃষ্টিশক্তিকে প্রভাবিত করতে পারে।

৩. মাথা ব্যাথা

যে সব লোকদের মধ্যে রক্তে উচ্চ শর্করা থাকে তাদের মাথা ব্যাথা করা সাধারণ ঘটনা। এগুলি মাইগ্রেন বা গুরুতর প্রকৃতির হিসাবে বর্ণনা করা হয় না। কিন্তু এটি আপনার রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার প্রাথমিক লক্ষণগুলির মধ্যে একটি। যদি চিকিৎসকের শরণাপন্ন না হন, মাথা ব্যাথা আরও খারাপ অবস্থায় যাবে।

৪. ঘন ঘন বাথরুমে যাওয়া

আপনার স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বার প্রস্রাব করার প্রয়োজন যদি হয় তবে, এটি রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার একটি সাধারণ লক্ষণ। যেহেতু রক্ত শর্করা প্রক্রিয়া করে না, আরও বেড়ে যায় এবং কিডনিতে পৌঁছায় । সেখানে, কিডনি ফিল্টার করার জন্য চাপের মধ্যে কাজ করে এবং তারপরে এই অতিরিক্ত চিনি শোষণ করে। তারপরে অতিরিক্ত চিনি আপনার প্রস্রাবে প্রবেশ করে। ঘন ঘন বাথরুমে যাওয়া – একে পলিইউরিয়া (Polyuria) বলে।

৫. অতৃপ্ত তৃষ্ণা

অত্যধিক তৃষ্ণাকে পলিডিপসিয়া (Polydipsia) বলা হয়। পলিডিপসিয়া রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার একটি লক্ষণ। পলিডিপসিয়ার ফলে, লোকেরা পলিউরিয়া অনুভব করে, কারণ তারা যে জল পান করে তা অবশ্যই শরীর থেকে বের করে দিতে হবে।

আবার প্রস্রাব শরীর থেকে বেড়িয়ে গেলে, নিজেকে ডিহাইড্রেশন থেকে রক্ষা করতে হবে। সুতরাং, আপনি পানি পান করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করবেন। আপনি যত বেশি বাথরুমে যাবেন, তত বেশি পানি পান করতে চাইবেন।

৬. ক্ষুধা বৃদ্ধি

এটি রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার একটি স্বীকৃত সাধারন লক্ষণ । অত্যধিক ক্ষুধা বা ক্ষুধা বৃদ্ধিকে বলা হয় (polyphagia)। আপনি যতই খান না কেন বা আপনি যত ঘন ঘন খান না কেন, আপনার মনে হবে আপনার পেট খালি!

এছাড়াও এটি অনিয়মিত খাবার গ্রহণ, চাপ, বিষণ্ণতা, উদ্বেগ, বা হাইপারথাইরয়েডিজম (ওভারঅ্যাকটিভ থাইরয়েড গ্রন্থি) সহ অন্যান্য রোগের ক্ষেত্রে দেখা যেতে পারে।

৭. মুখ সব সময় শুষ্ক বোধ করা

একে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় জেরোস্টোমিয়া (Xerostomia)। এটি রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রা এবং ডায়াবেটিসের একটি সাধারণ লক্ষণ। আপনার যদি শুকনো মুখ থাকে এবং সন্দেহ হয় যে আপনার ডায়াবেটিস হতে পারে তবে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হল। শুকনো মুখ মুখের মধ্যে লালার অভাবের কারণে হয়।

শুষ্ক মুখের লক্ষণীয় বৈশিষ্ট্যগুলি হ’ল রুক্ষ ঠোঁট বা শুষ্ক জিহ্বা, মুখের ঘা, মাড়ি বা দাঁতগহ্বরের সংক্রমণ। শুকনো মুখ কথা বলা, খাবার চিবানো এবং গিলে ফেলা কঠিন করে তোলে, কারণ এই কাজগুলোর জন্য লালা প্রয়োজন।

৮. স্বাভাবিকের চেয়ে শুষ্ক ত্বক এবং চুলকানি

চুলকানি ডায়াবেটিস এর একটি সাধারণ লক্ষণ, এবং ডায়াবেটিস রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রার সাথে যুক্ত। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের ত্বকে চুলকানি অনুভব করার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আপনার যদি রক্তে শর্করার মাত্রা বেশি থাকে বা সন্দেহ হয় যে হতে পারে তবে আপনার ত্বকে চুলকানি ব্যাপারটা উপেক্ষা করবেন না। এবং চুলকানি থেকে আপনার ত্বকে যে ক্ষতি হবে তা গুরুতর হতে পারে।

৯. উচ্চ রক্তচাপ

রক্তে শর্করার উচ্চ মাত্রা উচ্চ রক্তচাপের কারন মাত্রা হতে পারে। উচ্চ রক্তচাপ রক্তনালীর অনিয়মিত সংকোচনের কারণে ঘটে যা সময়ের সাথে সাথে রক্তনালীর ক্ষতি করে। যখন আপনার রক্তে শর্করার পরিমাণ খুব বেশি থাকে, তখন এটি আপনার রক্তনালীর স্বাভাবিক আচরণ পরিবর্তন করে। রক্তনালীগুলির এই সংকীর্ণতা রক্তচাপকে বাড়িয়ে তোলে। রক্তনালীগুলির দেওয়ালে উচ্চ চাপ স্থায়ী ক্ষতির কারণ হতে পারে।

১০. ফলের গন্ধযুক্ত শ্বাস

আপনি যদি লক্ষ্য করেন যে আপনার শ্বাসে ফলের গন্ধ রয়েছে, তবে এটি ডায়াবেটিসের সম্ভাব্য লক্ষণ এবং আপনার রক্তে শর্করা বিপজ্জনকভাবে বেশি তা নির্দেশ করে। এটি একটি জীবন-হুমকির অবস্থা এবং এর জন্য জরুরি চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া প্রয়োজন।

তাই উপরোক্ত লক্ষণগুলো দেখা মাত্র বুঝতে হবে আপনার রক্তে উচ্চ শর্করা। তাই অবহেলা নয়, বরং দ্রুত চিকিৎসকের শরনাপন্ন হতে হবে।

রেফারেন্সঃ

আরও পড়তে পারেনঃ


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.