ঘন লম্বা সিল্কি চুল পছন্দ? জেনে নিন সহজ ঘরোয়া উপায়



রমণীর ঘন লম্বা চুলের মুগ্ধতা ছিল যুগেই। প্রেয়সীর একগোছা চুলের সৌন্দর্যে কত পুরুষ যে মন হারিয়েছে তার ইয়ত্তা নেই। এই চুল নিয়ে যুগে যুগে রচনা হয়েছে- গল্প, কবিতা, ছন্দ ও গান। তো সে ঘন লম্বা সিল্কি চুল পাওয়ার সহজ ঘরোয়া উপায়গুলো জেনে নেয়া যাক।

চুল লম্বা করার উপায়:

আজকাল অনেকে অভিযোগ করে থাকেন-চুল লম্বা হয় না! অবশ্য আধুনিক জীবন যাত্রায় এত দূষণ, মানসিক চাপ আর পুষ্টির অভাবের মাঝে এটা স্বাভাবিক। তবে আপনি চাইলে আপনার চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে পারেন, পেতে পারেন ঘন লম্বা, সিল্কি চুল। পালন করতে হবে কিছু বিশেষ কৌশল। তবে জেনে নিন চুল লম্বা করার অব্যর্থ কিছু কৌশল।

ক) নিয়মিত তেল ম্যাসাজ করুন:

যুবতীর লম্বা ঘন কালো চুল

চুলের গোঁড়ায় তেল ম্যাসাজ করলে মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ে, ফলে চুলের ফলিকল গুলো উদ্দীপিত হয়, ও চুল পড়া বন্ধ হয়। এবং চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত হয়।

খ) চুলে ডিমের ব্যবহার:

চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে ডিম ব্যবহার করতে পারেন । ডিমে আছে প্রোটিন, আয়রন, ফসফরাস, জিংক, সেলেনিয়াম, সালফার। একটি বা দুটি ডিম নিন, সাথে যোগ করুন কয়েক চামচ এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল। এই মিশ্রণ চুলে ম্যাসাজ করুন। শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু করে ফেলুন। মাথায় খুশকি থাকলে কয়েক চামচ লেবুর রস যোগ করতে পারেন।

গ) চুলে পেঁয়াজের ব্যবহার:

পেঁয়াজের রস চুল লম্বা করতে বেশ কার্যকরী। চুলের পরিমাণ অনুযায়ী পেঁয়াজ পেস্ট করে তা থেকে রস বের করে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে নিন। ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষার পর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

চুল ঘন করার উপায়-

কিছু ঘরোয়া উপায়ে আপনার পাতলা, অপুষ্ট চুলকে করতে পারেন ঘন ও লম্বা। এজন্য দরকার ক্যাস্টর অয়েল, পেঁয়াজের রস, অ্যালোভেরা জেল, ও নারিকেল তেলের মতো সাধারণ উপাদান। এসব উপাদানে রয়েছে অনেক দরকারি ভিটামিন ও মিনারেল যা পাতলা চুল ঘন করতে ভীষণ কার্যকরী।

ক) অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী

অ্যালোভেরা মাথার ত্বকের মৃত কোষ মেরামত করে চুলের গোড়া মজবুত করে এবং চুলের বৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করে। অ্যালোভেরা জেল মসৃণভাবে পেস্ট করে মাথার ত্বকে ভালো করে ঘষে লাগিয়ে রাখুন। প্রায় ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষার পর সাধারন ঠাণ্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। পড়ুন – রূপচর্চায় এলোভেরা

খ) ডিম

একটি বাটিতে একটি ডিম ভেঙে নিন। এবং সাথে যোগ করুন ১ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল। এই দুটি উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত লাগিয়ে নিন। এবার একটি শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে ঢেকে রাখুন। ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষার পর শ্যাম্পু করে নিন। আরও পড়তে পারেন – ডিম প্রতিদিন খাবেন না মাঝে মাঝে খাবেন?

গ) আমলকী

আমলকীতে আছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি । এই দুই উপাদান চুলের স্বাস্থ্য সুন্দর রাখে এবং চুলের গোড়ায় কোলাজেন-এর মাত্রা বৃদ্ধি করে। ফলে চুল বৃদ্ধি পায় ও লম্বা হয়। ১ চামচ আমলকী গুঁড়ার সাথে ১ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ভালো করে লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন।

ঘ) মেথি

চুলের বৃদ্ধির জন্য মেথি একটি শ্রেষ্ঠ উপকরণ। এটি মাথার ত্বকের প্রদাহ দূর করে, খুসকি তাড়ায় এবং চুল মজবুত করে। ২ টেবিল চামচ মেথি সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন মেথি দানা ছেঁকে নিয়ে এর সাথে আধা কাপ পরিষ্কার পানি যোগ করে ব্লেন্ডার-এ ব্লেন্ড করে নিন। এবার এই পেস্ট-টি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রাখুন। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। পড়ুনঃ মেথির উপকারিতা ও ক্ষতিকর দিক

ঙ) মেহেদি পাতা

পাতলা চুল ঘন করা যায় মেহেদির ছোঁয়াতে। ২ মুঠো তাজা মেহেদি পাতা বেটে নিয়ে এর সাথে নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল যোগ করে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে নিন। ৩০-৩৫ মিনিট অপেক্ষার পর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

চুল সিল্কি করার উপায় কি?

সব বাঙালী নারীই চায় তাদের মাথার চুল লম্বা ঘন কালো সিল্কি হোক। ইচ্ছা করলে ঘরে বসেই আপনার এই ইচ্ছা পূরণ করতে পারেন। জেনে নিন উপায়-

  • মাথায় শ্যাম্পু করার পর একটি পাত্রে এক মগ পানির সাথে একটি লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে সেই পানি দিয়ে চুল আবার ধুয়ে ফেলুন। আলতো করে মুছে নিন। শুকিয়ে গেলেই দেখবেন কতটা সিল্কি, মসৃণ ও সুন্দর হয়েছে।
  • অ্যালোভেরা জেল ও টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এটি চুলে লাগিয়ে একটি শাওয়ার ক্যাপ মাথায় দিয়ে সারারাত রাখুন। পরের দিন শ্যাম্পু করে ফেলুন।
  • এক কাপ টক দই, ১ টি লেবুর রস এবং ২ চামচ নারকেল তেল ভালো করে মিশিয়ে নিন। গোসলের ৩০ মিনিট আগে চুলে ব্যবহার করুন যেন চুলের গোড়া বাদ না থাকে। তারপর ভালো করে শ্যম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

চুল পড়া বন্ধ করার উপায় কি?

অতিরিক্ত টেনশন, পুষ্টির অভাব ও প্রতিদিন ঘুমের ঘাটতি থাকলে চুল পড়া খুবই স্বাভাবিক। চুল পড়া বন্ধ করতে নিয়মিত ৮ ঘণ্টা ঘুম যেমন প্রয়োজনীয়, তেমনি সুষম খাবার খাওয়া ও নিয়মিত শরীরচর্চাও জরুরি। এছাড়াও –

  • রাতে ঘুমানোর আগে চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত নারিকেল তেল ম্যাসাজ করুন। সকালে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • অ্যালোভেরা জেল ব্লেন্ড করে চুলে মেখে ১ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করুন। এটি মাথার ত্বকের চুলকানি দূর করবে।
  • ডিমের কুসুমের সঙ্গে সামান্য অলিভ অয়েল ও লেবুর রস মিশিয়ে চুলে ১ ঘণ্টা লাগিয়ে রেখে শ্যাম্পু করে নিন। এটি চুল পড়া বন্ধ করবে এবং দ্রুত বৃদ্ধিতেও সাহায্য করবে।
  • অলিভ অয়েল চুলে ম্যাসাজ করে ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে শ্যাম্পু করে নিন।
  • পেঁয়াজের রস চুলের গোড়ায় ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। এর পর শ্যাম্পু করুন। বিস্তারিত জানতে – চুল পড়ার কারন ও ৫ টি ঘরোয়া সমাধান

নতুন চুল গজানোর উপায় কি? 

ক) হেয়ার ম্যাসাজ:

ম্যাসাজ করলে নতুন চুল গজাবে খুব শিগগিরই। কারণ ম্যাসাজ করলে মাথার স্ক্যাল্পে রক্ত সঞ্চালন বাড়ে।

খ) নারকেল তেল:

নারকেল তেলে প্রচুর ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে। নারকেল তেল ব্যবহারে চুল ভেতর থেকে পুষ্টি পায়। এজন্য দ্রুত লম্বা হয়, সেইসঙ্গে নতুন চুল গজায়। এ ছাড়াও হয় ঝলমলে ও কোমল।

গ) খাবারে ওমেগা:

চুলের জন্য সবচেয়ে কার্যকরী এক উপাদান হলো ওমেগা। চুল পড়ার সমস্যা রোধে ও নতুন করে গজাতে উপাদানটি কাজ করে। তবে সাপ্লিমেন্ট হিসেবে ওমেগা গ্রহণের আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

ঘ) ধূমপান ত্যাগ:

ধূমপান করলে চুলের ফলিকল নষ্ট হয়ে যায়। তাই চুল পড়া রোধ করতে চাইলে দ্রূত ধূমপান ত্যাগ করতে হবে।

ঙ) প্রোটিন গ্রহণ:

প্রতিদিন পর্যাপ্ত প্রোটিন জাতীয় খাবার গ্রহণ করুন। যেমন দুধ, মাংস, ডিম, মাছ, ইত্যাদি।

ছেলেদের চুল পড়া বন্ধ করার উপায় কি? 

  • চুলের গোড়া পরিষ্কার রাখুন
  • চুলে অতিরিক্ত তেল দেওয়া থেকে বিরত থাকুন
  • বেশিক্ষণ ভিজিয়ে রাখবেন না
  • সপ্তাহে ২-৩ দিনের বেশি শ্যাম্পু করা পরিহার করুন
  • স্বাস্থ্যকর ডায়েট করুন
  • স্ট্রেস কমিয়ে রাখুন
  • ধূমপান, মদ্যপান বন্ধ করুন

চুল পড়া বন্ধ করতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল খেতে পারেন। এছাড়াও ভিটামিন– ই সমৃদ্ধ ফলমূল বা শাকসবজি খেতে পারেন।

লেখাটি সম্পর্কে কোন মন্তব্য থাকলে কমেন্ট বক্সে লিখুন।

তথ্যসূত্রঃ

আরও পড়তে পারেন-


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.